১২৭ তম জন্ম দিবস পালন

রিপোর্টার, কলকাতা থেকে শম্পা দাস ও সমরেশ রায়

২৪ শে নভেম্বর 2022, বৃহস্পতিবার, বিকেল পাঁচটায় আইসিসিআর , সত্যজিৎ রায় অডিটোরিয়ামে একটি যোগব্যায়াম ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ,শিবানন্দ বাবার ১২৭ তম জন্ম দিবস পালন করলেন ও তার সাথে সাথে বিভিন্ন লেখকের লেখা নয় খানা বই এর শুভ সূচনা করলেন। ও একটি ক্যাসেটের শুভ সূচনা করলেন, যে বইগুলি খুবই মূল্যবান এবং মূল্যবান মানুষদের নিয়েই লেখা বইগুলি, হিন্দি ও বাংলায় প্রকাশিত হয়, বই প্রকাশ হয় স্বামী শিবানন্দ বাবার জীবন, ভারত রত্ন প্রণব মুখার্জি , শ্যামল সেন বিচারপতি, শ্রী কেশরী নাথ ত্রিপাঠী, চন্ডীদাস ঘোষ ,জগজ্জননী মা সারদা, এরকম বেশ কয়েকটি মূল্যবান বই আজ প্রকাশিত হয়, আজকের এই অনুষ্ঠান যার উদ্যোগে এবং পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয় এবং যে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন শ্রীমতি গায়ত্রী চক্রবর্তী, যাহার উদ্যোগে আজকের এই সুন্দর অনুষ্ঠান সুন্দরময় হয়ে উঠেছে যোগব্যায়াম ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এবং যিনিএকটি কালচারাল ইউনিটের প্রেসিডেন্ট ,আজ শিবানন্দ বাবা সহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দের সহযোগিতায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে আজকের এই সুন্দর অনুষ্ঠান শুভ সূচনা হয় এবং মঞ্চ আলোকিত হয়ে ওঠে। উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী ও ভারতীয় জনতা পার্টি একজন কর্মদক্ষ শ্রী রাহুল সিনহা মহাশয়, উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন বিচারপতি ও রাজ্যপাল শ্যামল সেন মহাশয়, উপস্থিত ছিলেন কর্নেল ও রামকৃষ্ণ মিশনের সিদ্ধাশানন্দ, আইসিসিআর প্রাক্তন ডিরেক্টর গৌতম দে, শ্রমিক রাহা এবং অন্যান্যরা, সবার বক্তব্যের মধ্য দিয়ে একটি কথাই উঠে আসে, স্বামী শিবানন্দজী যেভাবে মানুষের পাশে আজও রয়েছেন এবং সুদূর বারানসীতে যেভাবে তিনি কুষ্ঠ রোগীদের সেবা করে চলেছেন ,
যিনি রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে পুরস্কৃত হয়েছেন ,আমরা গর্বিত আজ শিবানন্দ মহারাজকে মানুষ চিনছে ,তার জীবন যাপন সম্বন্ধে জানছে এবং তিনি কিভাবে দুস্থদের পাশে এগিয়ে যান তার ধ্যান ও ধারণা কি, সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরছেন, আমরা আজ শিবানন্দ মহারাজের হাত ধরে এগিয়ে যাব আরো সামনের দিকে ,তার বিভিন্ন যে কর্মকাণ্ড তুলে ধরার চেষ্টা করব ও প্রতিটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার চেষ্টা করব, যিনি কোনদিন বেশি কথা বলতে পছন্দ করেননি সবসময় নিজের মধ্যে সীমাবদ্ধ রেখেছেন ১২৭ বছর বয়সেও তিনি একইভাবে দিন যাপন করে চলেছেন এবং তার যে রোজের রুটিন সেটাও তিনি আজও একই ভাবে পরিচর্যা করে চলেছেন আমরা গর্বিত এরকম একটা মানুষ কি এবং স্বামীজিকে পেয়ে আর আজকে ধন্য হয়েছি বেশ কয়েকজন গুণী মানুষের হাত ধরে আমার বইগুলি শুভ সূচনা করতে পেরেছি।..। ধন্যবাদ জানাই আজকের উপস্থিত দর্শকবৃন্দদের যারা আমাকে সুন্দরভাবে পরিচালনা করার সহযোগিতা করেছে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *