স্ত্রীর আবদার পূরণ না করায় স্বামীর উপর অভিমানে স্ত্রীর আত্মহত্যা।

এনামুল মবিন(সবুজ), স্টাফ রিপোর্টারঃ দিনাজপুর সদর উপজেলার ৫নং শশরা ইউনিয়নের, ১নং ওয়ার্ডের খোনমাধবপুর গ্রামে একটি ভাড়াটিয়া  বাড়ি থেকে গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত গৃহবধু ফারজানা(২১) ফরিদপুর জেলা ও বোয়ালমারী উপজেলার শকের গ্রামের আল,আমিনের, স্ত্রী এবং মাদারীপুর, শিবচর উপজেলার পাকটল গ্রামের ফারুক শেখ এর মেয়ে। 

ঘটনার বিস্তারিত নিহতের স্বামী আল আমিনের কাছে জানতে চাইলে সে জানান, রাতে ফারজানা আমাকে বলেছিলো দিনাজপুর বানিজ্য মেলায় নিয়ে যেতে। আমি তাকে বলেছিলাম তোমার যাওয়ার দরকার নেই। এ নিয়ে রাতে একটু কথা কাটাকাটি ও অভিমান সৃষ্টি হয় তার সাথে রাতে পাশের রুমে ঘুমাইতে গিয়েছি। ঘুমানোর আগেই আরেকটি রুমে দেখি সে দাঁড়িয়ে আছে।  দেখে আমি পাশের রুমে ঘুমিয়ে গেছি  রাত সাড়ে  বারোটার সময় আমি সুয়ে পরি। সকালে ঘুম থেকে উঠে পাশের রুমে গেলে গলায় উড়না পেচানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে আশে পাশের সবাইকে এবং এলাকাবাসীকে ডাক দেই ।

তিনি আরো জানান আমরা দু’জন দু’জনকে পছন্দ করে বিয়ে করি। মেলায় না নিয়ে যাওয়ায় হয়তো আমার উপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে। আমার স্ত্রীর একটু  বদমেজাজি ছিল। 

স্থানীয়দের কাছ থেকে যানাযায়, আলামিনের স্ত্রীর বাচ্চাকাচ্চা হচ্ছিল না। তাই স্বামী-স্ত্রী ডাক্তারের কাছ থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এসেছিলেন এই রাতে। 

স্থানীয় মেম্বার মামুন বলেছেন, ৯ মাস আগে স্বামী স্ত্রী এই এলাকায় ২রুম বিশিষ্ট বিল্ডিং বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকেন। আল-আমিন এ্যাকমি কোম্পানির ভেটেনারী সুপার ভাইজার হিসেবে কাজ করে বলে আমরা জানি । সকালে আমরা ঘটনাটির খবর জনতে পারি এবং দিনাজপুর সদর থানা পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায় ।

ঘটনাটির বিষয় কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে একটি গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছি । মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।