সৈয়দপুরে রেলের ১৬ একর জমি ভুয়া মালিকানায় বিক্রি উদ্ধারে মাঠে নেমেছে কর্তৃপক্ষ

এপিএন ডেস্কঃ ভুল রেকর্ডকে পুঁজি করে রেলওয়ের প্রায় ১৬ একর জমি বিক্রির মহোৎসব শুরু হয়েছে নীলফামারীর সৈয়দপুরে। শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশে বিপুল পরিমাণ ওই জমির মালিক রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ হলেও ভুয়া মালিক বানিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে প্রকাশ্যে। ৩ আগস্ট অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিন তদন্ত করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।


অভিযোগে জানা গেছে, সৈয়দপুরে দেশের সর্ববৃহৎ রেলওয়ে কারখানা গড়ে ওঠায় কারখানার বাইরে প্রায় ৮শ’ একর জমি আছে। এর মধ্যে শহর এলাকাতেই রয়েছে প্রায় ৩শ’ একর। কিন্তু কর্তৃপক্ষ নজরদারীর অভাবে প্রায় ৯০ শতাংশ জমি চলে গেছে অবৈধ দখলে। এর মধ্যে আলোচিত ১৬ একর জমি। বঙ্গবন্ধু সড়কের নেসকো অফিসের সামনে ওই জমি একাধিক ব্যক্তি ভুয়া মালিক সেজে অবৈধভাবে দখলে নেয়। পরবর্তীতে তারা বিভিন্ন জনের কাছে চড়া দামে বিক্রি করে। ভুয়া মালিকের কাছে কিনে নেওয়া রেলের জমিতে অনেকে বাড়িঘর তুলেছেন, আবার অনেকে বহুতল ভবনও নির্মাণ করেছেন।
গত ৩ আগস্ট রেলওয়ে প্রশাসনের প্রায় ৪০ জন সদস্য নিয়ে থেকে ওই স্থানে যান পার্বতীপুর রেলওয়ে ভূসম্পদ বিভাগের সরকারী আমিন হিরেন্দ্র নাথ সরকার। তিনি ওই এলাকা ঘুরে অবৈধ দখল ও ভুয়া মালিকানায় জমি বিক্রির অভিযোগের সত্যতা পান।

এ বিষয়ে পার্বতীপুর রেলওয়ে ভূসম্পদ বিভাগের ফিল্ড কানুনগো মোঃ জিয়াউল হক জানান, এটি হল বাঙ্গালীপুর ও নিয়ামতপুর এলাকা। এখানে রেলওয়ের ১৬ একর জমি রয়েছে। ওই জমির ভুয়া মালিক সেজে কতিপয় ব্যক্তি তা অনেকের কাছে বিক্রী করে গেছেন। ক্রেতারা ওই জমির ওপর কেউ কেউ ঘরবাড়ি নির্মাণ করে আছেন। শেখ সাদ কমপ্লেক্স গড়ে তোলা হয়েছে। আবার কেউ কেউ ক্রয় করে নিজেদের দখলে রেখেছে।
তিনি বলেন সরকারী জায়গা উদ্ধারে আমরা মাঠে নেমেছি। রেলওয়ের জায়গা আমরা আজ মাপযোগ করছি। কারা এ সরকারী জায়গা বিক্রী করছে আর কারা ক্রয় করছে তাদের তালিকা করছি। সময় হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইতোমধ্যে শেখ সাদ কমপ্লেক্সের বিরুদ্ধে মামলার রায় রেলওয়ের পক্ষে এসেছে। দ্রুত সময়ে সরকারী জমি উদ্ধারে মাঠে নামা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *