সৈয়দপুরে চলছে গ্যাস লাইনের কাজ শিল্প কারখানা স্থাপনের স্বপ্ন দেখছেন স্থানীয়রা।

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে দ্রত গতিতে এগিয়ে চলছে গ্যাস সঞ্চালন পাইপ লাইন নির্মাণ প্রকল্পের কাজ। একাজ দৃশ্যমান হওয়ায় শিল্প কারখানা স্থাপনের স্বপ্ন দেখছেন স্থানীয় বিনিয়োগকারীরা। আশা করা হচ্ছে, আগামি বছরের জুলাই মাসে পাইপ লাইনে গ্যাস পাবে সৈয়দপুরবাসী।
জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর মেগা প্রকল্পের আওতায় এ কাজে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৩৭৮ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। প্রকল্পের ১৫০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে ৩০ ইঞ্চি ব্যাসের সঞ্চালন লাইন বগুড়া থেকে রংপুর হয়ে সৈয়দপুর পর্যন্ত বসানো হচ্ছে। প্রকল্পটির পাইপ লাইনের রুটম্যাপ অনুযায়ী অধিগ্রহণ করা জমিতে সঞ্চালন লাইন পাইপসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম বিছানো হয়েছে। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান প্রায় ৬০ ভাগ পাইপ জোড়া লাগানোর কাজ করেছে বাকি কাজও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করার কর্মযজ্ঞ চলছে। সৈয়দপুর শহরের বাইপাস সড়ক সংলগ্ন জায়গায় স্থাপন করা হচ্ছে সেন্ট্রাল গ্যাস সাপ্লাই (সিজিএস) স্টেশন।


সরেজমিনে সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের চিকলী পাইপ লাইন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, বসানো হচ্ছে সঞ্চালন পাইপ। এ কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে ভারী যানবাহনসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি। ক্ষেতের উঁচু নিচু জমি সমতল করে ভূমি উন্নয়ন করা হচ্ছে। পাইপ জোড়া লাগাতে চলছে ওয়েল্ডিংয়ের কাজ। প্রকল্পের এলাকা জুড়ে চলছে শ্রমিক-কারিগর ও প্রকৌশলীদের বিশাল কর্মযজ্ঞ। প্রকল্পের কাজ দৃশ্যমান হওয়ায় অনেকেই আশায় বুক বেঁধেছে। অপরদিকে কয়েকগুন বেড়েছে ওই এলাকার জমির দাম।


এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পাইপ লাইন নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক খন্দকার আরিফুল ইসলামের জানান, করোনা মহামারীর কারণে কাজ শুরু করতে কিছুটা বিলম্ব হলেও এখন দ্রুততার সঙ্গে চলছে গ্যাস লাইন স্থাপনের কাজ। ইতোমধ্যে প্রকল্পের ৬০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। অবশিষ্ট কাজ চলমান রয়েছে। আশা করছি যথাসময়ে কাজ শেষ করা সম্ভব হবে।
সৈয়দপুরের বিশিষ্ট শিল্প উদ্যোক্তা ও নীলফামারী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহসভাপতি রাজ কুমার পোদ্দার বলেন, ব্যবসায়ীদের প্রাণের দাবি ছিল উত্তরাঞ্চলে গ্যাস সরবরাহ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দাবি পূরণ করেছেন। গ্যাস সরবরাহ হলে শিল্প-কারখানা যেমন বাঁচবে, তেমনি গড়ে উঠবে নতুন নতুন কল কারখানা।দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ আসবে এবং মানুষের বেকারত্ব দূর হবে।