মধ্য আফ্রিকায় নিহত শান্তি রক্ষী জাহাঙ্গীরের পরিবারে শোকের মাতম


মো:রেজাউল করিম রঞ্জু,নীলফামারী প্রতিনিধি:
মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে শান্তিরক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার সময় মাইন বিস্ফোরণে ৩ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরো দুই জন। এরা প্রত্যেককে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্য।
তাদের মধ্যে সৈনিক জাহাঙ্গীর আলমের বাড়ি নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ তিতপাড়া গ্রামে। তিনি লতিফর রহমানে ছেলে।লতিফর রহমানের পাঁচ ছেলের মধ্যে জাহাঙ্গীর চতুর্থ ছিলেন।
নিহত জাহাঙ্গীর আলমের বড় ভাই সেনা সদস্য কর্পোরাল আবুজার রহমান জানান, ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন জাহাঙ্গীর। ১০ মাস আগে মধ্য আফ্রিকান প্রজাতেন্ত্রর ব্যানব্যাট -৮ এলাকার উইক্যাম্পে শান্তিরক্ষী মিশনে যান তিনি। মঙ্গলবার ৪ অক্টোবর ভোর ৪টায়(বাংলাদেশ সময়) মাটিতে পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে তার ভাইসহ তিন বাংলাদেশী সেনাবাহিনী প্রাণ হারায়।
মঙ্গলবার সেবাবাহিনীর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মোবাইলে জাহাঙ্গীরের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন বলে জানান নিহতের ছোট ভাই বাদশা।
এরপর থেকে জাহাঙ্গীরের পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।বুধবার সকালে সরেজমিনে জাহাঙ্গীরের বাড়ীতে গিয়ে দেখা যায়, বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে বাবা লতিফর রহমান। মা গোলেনুর বেগম। বিছানায় কাতর হয়ে পড়ে আছেন,সদ্য বিবাহিত স্ত্রী শিমু আক্তার। স্বামীর ছবি বুকে ধরে স্তব্ধ হয়ে পড়েছেন।আর মাঝে মাঝে গগন বিদারি চিৎকারে কেঁদে উঠছেন। শুধু পরিবার নয় জাহাঙ্গীরের বাড়ির আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে শোকের ছায়া। অবাক হয়ে পড়েছেন আতœীয় স্বজন সহ ওই এলাকার হাজারো মানুষ। জাহাঙ্গীরের বড় ভাই আবুজার দ্রুত ভাইয়ের মরদেহ ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *