বীরগঞ্জে ফুল গ্রেইন চালের প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ

তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদদাতা: দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ইকো-সোশ্যাল ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন ইএসডিও এর আয়োজনে ফুল গ্রেইন চাল প্রক্রিয়াজাতকরণ একদিন ব্যাপি বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে উপজেলার ভোগনগর ইউনিয়ন পরিষদ সভাকক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন পিকেএসএফের সহায়তায় এবং বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট এসইপি এর উপ প্রকল্পের আওতায় হাস্কিং মিলের পরিবেশের দূষণ কমানোর মাধ্যমে সাধারণ মানুষের প্রচলিত খাবার হিসেবে ফুল গ্রেইন চাল প্রক্রিয়াজাতকরণ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ফুল গ্রেইন চাল প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি অফিসার আবু রেজা মো. আসাদুজ্জামান, ভোগনগর ইউনিয়নের ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো. রাজিউর রহমান রাজু, ইএসডিও-এসইপি এর প্রজেক্ট ম্যানেজার মো. আবু বক্কর সিদ্দিক, প্রকল্প অফিসার রাজিউর রহমান রাজু, পরিবেশ অফিসার মো. কামরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কবিরাজহাট শাখার শাখা ব্যবস্থাপক প্রবীর মন্ডল। প্রজেক্ট ম্যানেজার মো. আবু বক্কর সিদ্দিক উপস্থিত সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তার বক্তব্যে বলেন, সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দেন। এই প্রজেক্টের সদস্যদের মাধ্যমে কর্মপরিবেশ ঠিক রেখে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা ও পরিবেশ চর্চা গুলো নিশ্চিত করা। সবাইকে পরিবেশ চর্চাগুলো বাস্তবায়ন করার পাশাপাশি সুন্দর পরিবেশে নিরাপদ ও স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পুষ্টিকর ফুল গ্রেইন চাল উৎপাদন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। কবিরাজহাট শাখার শাখা ব্যবস্থাপক প্রবীর মন্ডল তার বক্তব্যে বলেন, পরিবেশ চর্চার উপর গুরুত্ব দিয়ে পুষ্টিকর ফুল গ্রেইন চাল উৎপাদন করার পরামর্শ দেন ও শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করার আহŸান জানান। উপজেলা কৃষি অফিসার আবুরেজা মো. আসাদুজ্জামান তার বক্তব্যে বলেন, ধান ও অন্যান্য ফসল উৎপাদনের ক্ষেত্রে পরিমিত পরিমাণে রাসায়নিক সার ব্যবহার করতে হবে। তিনি আরো বলেন, বাজারে চকচকে চালের সয়লাব হওয়ায় সাধারণ মানুষ তা কিনতে আগ্রহী হচ্ছে। ফুল গ্রেইন চাল হাস্কিং মিলে প্রক্রিয়াজাতকৃত ও স্বাস্থ্য সম্মত। হাস্কিং মিলের চাল নিরাপদ উপায়ে কিভাবে উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাতকরণ করতে হবে তিনি এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। এছাড়াও প্রকৃতিকে ফিরিয়ে আনার জন্য জমিতে ছাইয়ের পরিমাণ বাড়াতে হবে। তাহলে আমরা নিরাপদ খাবার পাবো, কেননা বেশি পরিমানে রাসায়নিক স্যার ব্যবহারের ফলে খাবারগুলো অনিরাপদ হচ্ছে। সর্বোপরি তিনি ইএসডিওকে এই প্রকল্প গ্রহণের ধন্যবাদ জানান এবং সর্বাত্মক সহযোগীতার আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই প্রকল্পের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ ফুল গ্রেইন চাল খাওয়া এবং পরিবেশ চর্চা বাস্তবায়নের মাধ্যমে স্বাস্থ্যগত ভাবে উপকৃত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *