বীরগঞ্জে একের পর এক মিথ্যা মামলায় জর্জরিত বৃদ্ধ কফিলের পরিবার।

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জ পৌরশহরের ৩নং ওয়ার্ডে জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় জর্জরিত ও চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ভুক্তভোগী বৃদ্ধ কফিল উদ্দিন সহ তার পরিবারের সদস্যরা।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীর পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, একই গ্রামের মৃত. সফির উদ্দীনের ছেলে আব্দুল রশিদ ও আব্দুল হকের সাথে দীর্ঘদিন যাবত জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এমতবস্থায় গত ১৫ এপ্রিল গভীর রাতে নিজেরাই নিজেদের খড়ির ঘরে আগুন লাগিয়ে সেটাকে শয়ন ঘর দেখিয়ে আব্দুল হক বাদি হয়ে কফিল উদ্দীনের ছেলে রবিউল ইসলাম, নাসির উদ্দীন বাবু, রফিকুল ইসলাম, রবিউল ইসলামের ছেলে শরীফ ও টুকুর নামে ঘটনার ১১ দিন পড়ে বীরগঞ্জ থানায় একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ২১, তারিখ ২৬-০৪-২০২২ইং।

এই মামলায় আসামী নির্দোষ রবিউল ও নাসির হোসেন বাবু ২৮ এপ্রিল আত্মসমর্পণ করতে গেলে আদালত কতৃক জামিন নামঞ্জুর হওয়ায় বর্তমানে দিনাজপুর জেলখানায় আটক হয়। দরিদ্র এই পরিবারের ২জন উপার্জন ওয়ালা ব্যক্তি মিথ্যা মামলায় জেল হাজতে আটক হওয়ায় ঈদের আনন্দ শোকে পরিবর্তন হয়েছে। এর আগেও কফিল উদ্দীন ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে তুচ্ছ ঘটনায় শিম গাছ কর্তন, চাঁদাবাজি সহ একের পর এক  বেশ কয়েকটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন প্রতারক, মামলাবাজ আব্দুল রশিদ ও আব্দুল হক। তাদের কবল হতে মুক্তি পেতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহ সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট ন্যায় বিচারের আকুতি জানিয়েছেন পরিবারটি ।

এ ঘটনায় বীরগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল আহাদ বলেন, আব্দুল হক ও রশিদ নিজেরাই খড়ির ঘরে আগুন লাগিয়ে মিথ্যা, বানোয়াট ঘটনা সাজিয়ে অসহায় রবিউল সহ তাদের পরিবারের ৫ জনের বিরুদ্ধে অন্যায় ভাবে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন। অপরাধ না করেও বর্তমানে ২ জন জেল হাজতে রয়েছেন। অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরোও বলেন, আব্দুল হক ও আব্দুল রশিদ দুই জনেরই ছাঁদ ঢালাই করা বাড়ি রয়েছে।

তাদের প্রতিবেশী ও ২নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আহম্মদ আলী বলেন, আগুন লাগান খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখি ২/৩ টা টিন পড়ে আছে ও দমকল বাহিনীও ছিল সেখানে। আব্দুল হক ও আব্দুল রশিদের ছাঁদ পিটা ইটের পাকা বাড়ি আছে। আর ওই ইটের পাকা বাড়িতেই তাদের নামে পৌরসভার হোল্ডিং নাম্বারও আছে।হকের হোল্ডিং নাম্বার ১৭৪। আব্দুল হকের বাড়ি থেকে প্রায় ২০০ গজ দূরে তাদের এই খড়ির ঘর। সম্পূন্ন মিথ্যা বানোয়াট মামলা এই গরীব অসহায় পরিবারটির নামে চাপিয়ে তাদের নিঃস্ব করে দিচ্ছে।