বীরগঞ্জের পল্লীতে মাদক ব্যবসায়ীর হামলায় আহত ৩।

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে এক মাদক ব্যবসায়ী ও তার বাহিনীর হামলায় বিধবা বৃদ্ধা সহ ৩জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় মরিচা ইউনিয়নের ডাবরা জিনেশ্বরী গ্রামের মৃত. খোকা রাম বর্মণের ছেলে রনজিৎ চন্দ্র বর্মণ বীরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ডাবরা জিনেশ্বরী মৌজায় ৪২৮ নং খতিয়ানে ১৯৬৬ নং দাগে মোট ৬১ শতাংশ জমির মধ্যে ১০ শতাংশ জমি পাওনা রয়েছে। গত ১৬ এপ্রিল ২০২২ইং তারিখে পরিষদের চেয়ারম্যান বরাবর উল্লেখিত দাগে প্রতিপক্ষের মাটি কাটার কাজ বন্ধ করার জন্য একটি অভিযোগ দায়ের করি।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইউপি চেয়ারম্যান মো. আতাহারুল ইসলাম চৌধুরী হেলাল ৯নং ওয়ার্ড সদস্যকে সুষ্ঠু সমাধানের জন্য দায়িত্ব প্রদান করেন। ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী ও গ্রাম পুলিশ সুরুজ আলীকে নিয়ে ওইদিনেই আনুমানিক ২টার সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদেরকে মাটি কাটার কাজ বন্ধ করতে বললে মৃত. কেশেরী বর্মনের ছেলে কেশব রায়, তার ছেলে পলাশ, সজিব, মৃত. নীল বর্মনের নন্দরাম রায়, তার ছেলে কৃষ্ণ রায়, মৃত. কেশেরী বর্মনের ছেলে মুকুল রায় ও মৃত. বীরেন্দ্র নাথ রায়ের ছেলে অতুল রায় লাঠি, দা, বল্লম নিয়ে উত্তেজিত হয়ে রনজিৎ এর বাড়িতে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ সহ তাদেরকে প্রাণে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে বেপরোয়া ভাবে বেধরক মারপিট শুরু করলে রনজিৎ, তার মা ললিতা বেওয়া ও তার স্ত্রী রুপালী রায় গুরুত্ব আহত ও অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পরে যায়।

পরবর্তীতে প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে অটোযোগে বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালে ভর্তি করেন। সরেজমিনে গেলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া সহ মৃত. কেশেরী বর্মনের ছেলে কেশব রায় সেবন ও মাদক ব্যবসা কালে অনেকবারে পুলিশের কাছে ধরা পরে জেল খেটেছে। সেই সঙ্গে এলাকার বিভিন্ন অপরাধ অপকর্মের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে জানা যায়। রনজিৎ জানান, ঘটনাটি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীদের আইনানুগ ভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার প্রতি আকুল আবেদন জানান। থানায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে বীরগঞ্জ থানার এসআই মনির হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।