বিরামপুরে নৈশ্য কোচ রাহবারের চেকার মাষ্টারের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার।

বিরামপুর(দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুরের বিরামপুরে নিজ বাড়ি থেকে মৃত অবস্থায় মোশাররফ হোসেন ঝন্টু (৬৫) নামের এক ব্যক্তির অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তি নৈশ্য কোচ রাহবার এন্টারপ্রাইজের চেকার মাষ্টার হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করতেন। পুলিশের ধারণা করছেন বেশ কয়েকদিন আগে নিজ বাড়িতে স্টক জনিত কারণে তিনি মারা যেতে পারেন।


বুধবার (৩০ শে মার্চ) দুপুর দুই ঘটিকায় পৌর শহরের রেল লাইন সংলগ্ন পূর্ব জগন্নাথপুর এলাকায় তার নিজ বাড়ি থেকে ওই ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত মোশারফ হোসেন ঝন্টু পৌর শহরের পূর্ব জগন্নাথপুর এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে। বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সুমন কুমার মহন্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


প্রতিবেশী হাবিবর জানান, মোশারফ হোসেন ঝন্টু বিরামপুরের রাহবার এন্টারপ্রাইজ নামের একটি কোচের চেকার মাষ্টার হিসেবে চাকুরী করতেন। তার ছেলে,স্ত্রী কেউই বাড়িতে থাকেন না। সে একাই বাড়িতে থাকতেন। সকাল থেকে নিহতের বাড়ির দিক থেকে তীব্রতর গন্ধ আসছিল। তখন প্রতিবেশীরা অনেকে নিহতের বাড়ীর দরজায় গিয়ে জানতে পারেন তার ঘর থেকেই গন্ধ বাহির হচ্ছে। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে তার মরদেহ উদ্ধার করে।
নৈশ্য কোচ রাহবার এন্টারপ্রাইজ এর বিরামপুর অফিস সহকারী শফিকুল ইসলাম বলেন, মোশারফ হোসেন ঝন্টু ভাই এক জন খুবুই ভাল মানুষ ছিলেন, তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে এবং তার স্ত্রী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক । তার ছেলে মেয়ে কেউ তার বাড়ীতে থাকে না। তার স্ত্রী ঠাকুরগাঁ জেলায় বাবার বাড়ীতে থাকেন। ঝন্টু ভাই রাহবার নৈশ্য কোচে ঠাকুরগাঁ জেলার রানীশংকর উপজেলা থেকে বিরামপুর পর্যন্ত চেকার মাষ্টার হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করেন। গত রোবার(২৭ শে মার্চ) রাতে ডিউটি করেছেন। এরপর থেকে তিনি আর আমাদের অফিসে আসেননি।
বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সুমন কুমার মহন্ত বলেন, স্থানীয়দের দেওয়া খবরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মোশাররফ হোসেন ঝন্টুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি স্বাভাবিক মৃত্যু। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলেই সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে।