বরাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে সাংবাদিক আশরাফুলের সহধর্মিণীসহ ৪জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী।


তারাগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধিঃ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে প্রাচীন তম বহুল প্রচলিত জাতীয় দৈনিক সংবাদ পত্রিকা ও বরাতী বাজার তাওহীদ তামজিদ ফার্মেসির সত্বাধীকারী সাংবাদিক আশরাফুল ইসলামের সহধর্মিনী তাসলীমা বেগমসহ ৪ জন।


জানাগেছে, রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার ইকরচালী ইউনিয়নের বরাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে মহিলা সদস্য পদে ৩জন মনোনয়নপত্র ক্রয় করেন। নির্বাচন কতৃপক্ষের ঘোষণা দেয়া তফশিল অনুযায়ী ৩ জনের মননোয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন পরিচালনা কারী দাযিত্ব প্রাপ্ত কতৃপক্ষ। পরে ওই ৩ জনের মধ্যে সারাবান তহুরা নামের এক প্রার্থী নির্বাচন পরিচালনা কতৃপক্ষের কাছে প্রত্যাহার পত্র জমা করায় নির্বাচন কতৃপক্ষ সাংবাদিক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সহধর্মিণী তাসলিমা বেগম ও লাবুনী বেগমকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী ঘোষণা করেন। এছাড়াও পুরুষ প্রার্থী ৩ জন হলেও তাদের মধ্যে স্বাধীন নামের এক প্রার্থী নির্বাচন পরিচালনা কতৃপক্ষের কাছে প্রত্যাহার পত্র জমা করায় নির্বাচন কতৃপক্ষ বরাতী বাজারের বিশিষ্ট কীটনাশক ব্যবসায়ী ইঞ্জিনিয়ার বাছিয়ার রহমান ও মাহে আলম সরকার জুয়েলকে জয়ী ঘোষণা করেন।


বরাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলম জানান, যারা মননোয়নপত্র জমা করেছিলেন তারা হচ্ছে, বরাতী বাজারের ঔষধ ব্যবসায়ী পল্লি চিকিৎসক স্বাধীন চন্দ্র শাহ, বরাতী বাজারের বিশিষ্ট কিটনাশক ব্যবসায়ী ইঞ্জিনিয়ার বাছিয়ার রহমান, মাহে আলম সরকার (জুয়েল)। এছারাও মহিলা সদস্য পদে মননোয়নপত্র জমা করে সাংবাদিক আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী তাসলিমা বেগম, বরাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নৌশ্য-প্রহরী মনোয়ারুল ইসলামের স্ত্রী সারাবান তহুরা, বরাতী বাজারের কিটনাশক ব্যবসায়ী মাসুদ রানার স্ত্রী লাবুনী বেগমসহ ৬ জন মননোয়নপত্র জমা করলে তা যাচাই বাচাই চুড়ান্ত হয় পরে স্বাধীন শাহ্ ও সারাবান তহুরা নির্বাচন পরিচালনা কারী দায়ীত্ব প্রাপ্ত কতৃপক্ষের কাছে নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করার লক্ষে এক প্রত্যাহার পত্র জমা দেন। ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংবাদিক আশরাফুল ইসলামের সহধর্মিণী তাসলীমা বেগম, লাবুনী বেগম, বাছিয়ার রহমান, মাহে আলম সরকার জুয়েলকে বেসরকারী ভাবে জয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হয়।