ফুলবাড়ীতে অপপ্রচার এবং অযৌতিক মানববন্ধনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন।


প্লাবন শুভ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে আইনগত বৈধ মালিকানা সম্পত্তিকে জনসাধারণের কবরস্থান মর্মে অপপ্রচার এবং অযৌতিক মানববন্ধনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল সোমবার ফুলবাড়ী প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মানববন্ধনের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আনোয়ারুল কাদির।


এসময় উপস্থিত ছিলেন আনোয়ার কাদিরের চাচাতো ভাই মিজানুর রহমান, ফুফাতো ভাই কোরবান আলী, ছেলে এএসএম আসাদুজ্জামান জনি প্রমুখ।


আনোয়ার কাদির লিখিত বক্তব্যে বলেন, ফুলবাড়ী পৌরএলাকার ঢাকামোড়স্থে পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত এসএ ২৩৩ নং খতিয়ান, ৩০৪ দাগের সম্পত্তিটি আমরা ভোগদখল করে আসছি। আমার পিতার মৌখিত অনুমতি সাপেক্ষে উল্লেখিত দাগের দক্ষিণ-পূর্ব কোণে স্থানীয় অধিবাসীদের কবর দেওয়ার অনুমতি দেন। একই সম্পত্তিটি বংশ পরম্পরায় গত ২০০৯ সালে সেপ্টেম্বর মাসের ১০ তারিখে ওঢ-ও/২০৩/২০০৯-২০১০ নম্বর মোকাদ্দমা মূলে আমার নামে নামজারি করে পৃথক হোল্ডিং খুলে প্রতিবছর রাজস্ব প্রদানের মাধ্যমে স্বত্ববান ও ভোগদখলসহ আমি ও আমার ওয়ারিশগণের নামে চলমান বি.এস.ডি.পি. ১০৮ নং খতিয়ান প্রস্তুত হয়। উক্ত সম্পত্তিতে ইতোপূর্বে রিয়াজ উদ্দিন, আলতাফ হোসেন, আব্দুস সামাদ, আব্দুল ওহাবগং অনাধিকার প্রবেশপূর্বক পুকুরের মাছ এবং পুকুর পাড়ের গাছ কাটার চেষ্টা চালায়। এতে আমার পিতা আব্দুল জব্বার বাদি হয়ে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী মুনসেফ আদালতে ৫৯৯/৮৩ মোকাদ্দমা আনায়ন করেন। ওই মামলায় মাননীয় আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। পরবর্তীতে উক্ত মামলাটি জজকোর্টে আপিল করলে মাননীয় আদালত ড়প ধঢ়ঢ়বধষ হড়. ৯৩ এ ১৯৮৫ সালে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। তা সত্তে¡ও ওই বছরেই জজ কোর্টের রায়ের প্রধান বিবাদি রিয়াজ উদ্দিন এর ছেলে অপর প্রধান আসামী আলতাফ হোসেন ও তার সঙ্গীয় অপর আসামি আব্দুস সামাদ, আব্দুল ওয়াবগং, তৎকালিন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যানসহ কিছু লোকজন নিয়ে মহামান্য সহকারি জজ কোর্টের রায়কে উপেক্ষা করে আদালতের বিরুদ্ধে অশ্রদ্ধা করে ভুল তথ্য উপস্থাপন করে আমাকে এবং আমার ওয়ারিশগণকে ভয়ভীতি দেখিয়ে হায়রানি করছে।


তিনি আরো বলেন, জনৈক আলতাফ হোসেন পূর্ব গৌরীপাড়া থানাপাড়া মসজিদের সভাপতি হওয়ায় বিভিন্ন সময়ে মসজিদে জুম্মার নামাজের আগে এবং পরে বিভিন্ন মানুষের কাছে এই সম্পত্তি স্বত্বের বিষয়ে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ষড়যন্ত্রমূলক সম্পত্তিটির প্রকৃত তথ্য গোপন করে মিথ্যা ও ভুল তথ্য উপস্থাপন করে কুৎসা রটানোসহ আমাদের পারিবারিক করবস্থানটি জনসাধারণের রেকর্ডকৃত করবস্থান বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে। গত ১ এপ্রিল শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর এই সম্পত্তিটি জনসাধারণের এমন ভুল তথ্য উত্থাপন করে আমার ও আমার পরিবারবর্গকে সামাজিক ও মানুষিকভাবে হেয়পতিপন্ন ও হয়রানি করে ঢাকামোড়ে (ফুলবাড়ী-ঢাকা সড়কে) অযৌতিক মানববন্ধন করে। আলতাফ হোসেন ও তার সহযোগিরা মানববন্ধনচলাকালে যান চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। আমি এবং আমার ওয়ারিশগণ উক্ত অযৌতিক মানববন্ধনের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।