নীলফামারীতে ৯ম শ্রেণীর ছাএী অপহরণের প্রায় ২ মাস হলেও এখনো উদ্ধার হয়নি।

মো:রেজাউল করিম রঞ্জু, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীতে ৯ম শ্রেণীর ছাএী অপহরণের ১ মাস ২২ দিন হলেও এখনো উদ্ধার হয়নি। উদ্ধারের জন্য মামলা করলেও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় পরিবারটি দিশেহারা হয়ে পড়েছে।


মামলা সূএে জানা গেছে, নীলফামারীর ডোমার উপজেলার পূর্ব বোড়াগাড়ী কৃষি কলেজ পাড়ার হাচানুল ইসলামের মেয়ে মটুকপুর সপ্তর্ষী বিদ্যাপীট স্কুলের ৯ম শ্রেণীর ছাএী। প্রতিদিনের নেয় গত ২২শে মার্চ বিদ্যালয়ে যান পাঠদানের জন্য বিকেল ৫টা হলেও বাড়ীতে ফিরে আসেনি। বাড়ীতে ফিরে না আসায় ২৩শে মার্চ ডোমার থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন যাহার ডায়েরী নং-১১৫৮। তবুও কোন খোঁজ না পাওয়ায় গত ৭ই এপ্রিল ছয় জনকে আসামী করে ডোমার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন ছাএীর পিতা। যাহার মামলা নং-০৪। অদ্যবদি উদ্ধার না হওয়ায় গত ১১ই মে, নীলফামারী পুলিশ সুপার ও নীলফামারী র‌্যাব-১৩ কোম্পানী কমান্ডার বরাবর উদ্ধারের জন্য আবেদন করেন ছাএীর পিতা হাচানুল ইসলাম।


ছাএীর পিতা হাচানুল ইসলাম বলেন, আমি প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুড়ে আজও আমার নাবালিকা মেয়েকে উদ্ধার করতে না পেয়ে আমি ও আমার পরিবার পাগল প্রায়। আমি আমার মেয়েকে ফিরে চাচ্ছি। জীবিত বা মৃত্যু যেটাই হউক না কেনো আমি আমার মেয়েকে চাই।
ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, থানায় মামলা হয়েছে, আমরা উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছি। কিছুদিনের মধ্যে উদ্ধার হয়ে যাবে।