নবাবগঞ্জে আকর্ষিক ঘূর্ণী ঝড়ে তিন শত বাড়িঘর লন্ডভন্ড।

বিরামপুর (দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জের কুশদহ ইউনিয়নের গিলাঝুকি (মাহতাবপাড়া),ষস্টিপাড়া, ঘোনা পাড়া, কষ্টিয়াপাড়া ও ছাবেদ গঞ্জের উপর দিয়ে আকর্ষিক কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যায়। এতে তিন শত পরিবারের বাড়িঘর লন্ডভন্ড হয়ে ভেঙে চুরমার হয়ে যায়।
নবাবগঞ্জের কুশদহ ইউনিয়ানে মঙ্গলবার(২৬ শে এপ্রিল) রাত ১১ ঘটিকায় হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ে গিলাঝুকি,ষস্টিপাড়া,ঘোনাপাড়া,কুষ্টিয়াপাড়া ও ছাবেদগঞ্জ গ্রামের তিন শত বাড়িঘর নিমিশে লন্ডভন্ড হয়ে যায়। এতে শিশু ও বৃদ্ধসহ প্রায় এক শতজন আহত হয়। গুরুত্বর অবস্থায় ২৫ জন নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে।


নবাবগঞ্জ উপজেলা ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রানলায়ের কর্মকর্তা রেফাউল আজম(পিআইযু) বলেন, হঠাৎ প্রাকৃতিক দূর্যোগে কুশদহ ইউনিয়ানের পাঁচটি পাড়ায় প্রায় তিন শত পঞ্চশটি পরিবারের বাড়িঘর ভেঙে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। ক্ষতি গ্রস্ত পবিরারকে তাৎক্ষণিক শুকনা খারারে ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিটা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা তৈরী করা হচ্ছে। প্রাথমিক ভাবে তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা ও দশ টণ চাল বরাদ্ধ দেওযা হচ্ছে।


দিনাজপুর -৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক বলেন, নবাবগঞ্জের কুশদহ ইউনিয়ন আমার বাড়ি,হঠাৎ প্রাকৃতিক দূর্যোগে পাঁচটি গ্রামের মানুষে বাড়িঘর ভেঙে শেষ হয়ে গেছে। মানুষের আহাজারি চোখের পানি ধরে রাখা যাচ্ছে না। কারো থাকার জায়গা নেই। মঙ্গবার রাতেই ঘটনাস্থালে এসে আমার গাড়ীতে ও এম্বল্যাসে আহত মানুষদের হাসপাতে ভর্তি করেছি। রাতে রোজাদার ব্যক্তিদের শেহেরির ব্যবস্থা করেছি। এছাড়া আমার নিজ তহবিল থেকে প্রতিটা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে দশ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে আরো ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ সোম বলেন, প্রাকৃতিক দৃয়োগের কারণে পাঁচিটি গ্রামে প্রায় তিনশত পঞ্চশটি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জেলা প্রশাসকের হতবিল থেকে প্রতিটি পরিবারকে ৩০ কেজি চাল ও নগদ অর্থ এক হাজার টাকা প্রদান করা হবে।