নগরকান্দায় পা’দিয়ে পাড়িয়ে গর্ভের বাচ্চা নষ্ট করার অভিযোগে আদালতে মামলা।

মিজানুর রহমান, নগরকান্দা (ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার লস্কারদিয়া ইউনিয়নের দাতপুর গ্রামে জমিজমা নিয়ে মৃত কাদের শেখের ছেলে এসকেন শেখ ও সেকেন শেখ এর সাথে মান্নান শেখ এর ছেলে এনায়েত, হেমায়েত, লিয়াকত, কেরামত শেখদের সাথে  দীর্ঘ দিন ধরে মনমালিন্য চলে আসচ্ছে। এরই রেশ ধরে গত ৯ মার্চ বুদবার দুপুরে এসকেন শেখ মাঠের কাজ শেষ করে এনায়েত, হেমায়েত, লিয়াকত  কেরামত শেখ এর পুকুরে গসল করতে যায় সেখানে পরিকল্পিত ভাবেই এসকেন শেখকে মারধর করে এনায়েত শেখ ও তার ভাই’রা।এসকেন শেখের ডাক চিৎকারে তার ভাই সেকেন শেখ, সেকেন শেখ এর স্ত্রী মর্জিনা বেহম(৩০), এসকেন শেখের  স্ত্রী (৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা) সাজেদা বেগম (৩২) এগিয়ে গেলে তাদেরকেও নির্মমভাবে মারপিট করে আহত করে এনায়েত গংরা।সে সময় স্বামীকে বাচাতে গিয়েই সাজেদা বেগমের জীবনে নেমে আসে ভয়াবহ অন্ধকার।

সাজেদা বেগম মাটিতে পড়ে গেলে প্রতিপক্ষ ডাক্তার এনায়েত, হেমায়েত, কেরামত, লিয়াকত শেখদের গন পাড়ানিতে তার শারীরিক অবস্হা আশংকাজনক হলে প্রথমে নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিলে সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করে। হাসপাতালে নেওয়ার পথে হাসপাতালের গেটের সামনে সাজেদা বেগম  এর বাচ্চা এমনিতেই ডেলিভারি হয়ে যায়। সাজেদা বেগম হাসপাতাল থেকে কোনরকম সুস্থ হয়ে বাড়িতে এসে জীবন মরন যন্ত্রণায় ছটফট করছেন। তবে তারা গর্ভের বাচ্চাটি আলামত হিসাবে জব্দ করে রেখেছে বলে জানান।এবিষয়ে ভুক্তভোগী সাজেদা বেগম এর স্বামী এসকেন শেখ বাদী হয়ে আদালতে একটি মামলা করেন।মামলাটি তদন্ত প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

এবিষয় মামলার আসামীরা পলাতক থাকায় তাদের বক্তব্য জানা যায়নি। তবে ন্যায় বিচারের দাবীতে আসামীতের কঠিন বিচারের দাবীতে এলাকায় পোস্টার টাঙ্গানো সহ  লিফলেট বিতরণ করেন। এসকল জুলুমবাজ,ক্ষমতাশালীদের  কঠিন শাস্তি দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী সহ এলাকাবাসী।