নওগাঁয় ফেসবুকে সাংবাদিকের নামে মানহানিকর পোস্ট; থানায় অভিযোগ।

নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি : নওগাঁয় এক সাংবাদিকের নামে ফেসবুকে মানহানিকর তথ্য দিয়ে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক কথিত সাংবাদিকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ভুক্তভুগি ওই সাংবাদিক থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শহরের লাটাপাড়া মহল্লার বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ এর ছেলে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি রুহুল আমিন এর নামে রবিবার দুপুর ২টার দিকে মাববুব আলম রানা নামের এক কথিত সাংবাদিক তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে মানহানিকর পোস্ট দেয়।

পোস্টে তিনি লিখেন, যায়যায় দিন নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি ফোরামের নামে হাজার হাজার টাকা চাঁদাবাজি করা হয়েছে। এতে করে চরমভাবে মানহানি হয়েছে উল্লেখ করে পোস্টদাতার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রবিবার বিকেল ৪টার দিকে নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন সাংবাদিক রুহুল আমিন।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিক রুহল আমিন বলেন, মাহবুব আলম রানা একজন কথিত সাংবাদিক। সাংবাদিকতার আঁড়ালে সে বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়ায়। নওগাঁ সদর থানা, পতœীতলা থানা এবং ধামইরহাট থানায় তার নামে বেশ কয়েকটি মামলা চলমান আছে। বিভিন্ন সময় ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও মাদক কেনা-বেচার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সম্প্রতি রানাসহ বেশ কয়েকজন মিলে শহরের বালুডাঙ্গা এলাকায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাব নওগাঁ জেলা শাখা নামে একটি সাংবাদিক সংগঠন চালু করে। সেখানে বলা হয় সংগঠনটি সরকার অনুমোদিত। এসব বিষয় নিয়ে আমি নানা সময় প্রতিবাদ করি।

সাংবাদিকতার নামে নওগাঁয় কিছু অপসাংবাদিকতা করে চলেছে বেশ কয়েকজন নামধারী সাংবাদিক। এসসবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার কারনেই হয়তো আমার প্রতি হিংসাপরায়ন হয়ে এমন মানহানিকর পোস্ট দিয়েছে। আমি আইন অনুযায়ী তার শাস্তির দাবি করছি।

নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি ) নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন, মাহবুবু আলম রানা নামে এক ব্যক্তি দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার সাংবাদিক রুহুল আমিন এর নামে ফেসবুকে মানহানিকর পোস্ট দিয়েছেন। যার কারনে রুহুল আমিন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের বিষয়টি আমরা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।