দিনাজপুরে ‘অভিশপ্ত আগস্ট’ নাটকের প্রদর্শনী। 

এনামুল মবিন(সবুজ), স্টাফ রিপোর্টারঃ দিনাজপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে ‘অভিশপ্ত আগস্ট’ নাটকের ৭৬ ও ৭৭ তম প্রদর্শনী কেড়ে নিলো সকল শ্রেণী পেশার মানুষের মন।

১৫ আগস্ট বাঙালি জাতির ইতিহাসে সবচেয়ে শোকের দিন, সবচেয়ে কলংকিত দিন। ১৯৭৫ সালের ওই কালরাতে বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। রাজনৈতিক গন্ডির বাহিরে গিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রিয় সহধর্মিণী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা, সদ্য বিবাহিত শেখ কামাল, তার নববধূসহ পরিবারের সব সদস্য, আপনজন এমনকি রাজনীতি না করে বাবা মায়ের কোলে থাকা ছোট্ট রাসেলও সেই বর্বর হানাদের হাত থেকে রক্ষা পায় নি। ইতিহাসে এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা সত্যিই বিরল।

১৫ আগস্টের সেই শোকাবহ ঘটনাকে উপজীব্য করে বাংলাদেশ পুলিশ থিয়েটারের প্রযোজনায় দিনাজপুর শিল্পকলা একাডেমিতে ২/৩ জুন (বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার) সন্ধ্যা ৭ টায় ‘অভিশপ্ত আগস্ট’ মঞ্চ নাটকের ৭৬ ও ৭৭তম প্রদর্শনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মঞ্চায়িত হলো।

দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিপিএম,পিপিএম(বার) এর আমন্ত্রণে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম(এমপি) বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দিনাজপুর জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী, দিনাজপুর জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক  আজিজুল ইমাম চৌধুরী।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মোঃ মোকবুল হোসেন, পুলিশ সুপার(পিবিআই)দিনাজপুর, শচীন চাকমা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন), দিনাজপুর, মোঃ আসলাম উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ডিএসবি) দিনাজপুর, মোঃ রেজওয়ানুল ইসলাম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক), দিনাজপুর, স্বরুপ কুমার বক্সী বাচ্চু, সভাপতি, প্রেসক্লাব দিনাজপুর, সুব্রত মজুমদার ডলার সাধারণ সম্পাদক প্রেসক্লাব ও জেলা ক্রিয়া সংস্থা দিনাজপুর, মীন আরা পারভীন কালচারাল অফিসার জেলা শিল্পকলা একাডেমি, দিনাজপুরসহ জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

এসময় দিনাজপুর জেলা পুলিশের আমন্ত্রণে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, ছাত্র-ছাত্রী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মীগণ সাংবাদিকবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন উপস্থিত থেকে নাটকটি উপভোগ করে।

পুলিশ সদস্যদের সুদক্ষ অভিনয়ে মর্মান্তিক এই হত্যাকান্ডের দৃশ্যায়নে আমন্ত্রিত অতিথি ও দর্শকদের অনেকেই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। নাটক শেষে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ তাদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে অনেকেই আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন। ইতিহাসের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাকে মঞ্চের মাধ্যমে দর্শকদের সামনে নিয়ে আসায় অতিথিবৃন্দ বাংলাদেশ পুলিশের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান ও নাটকে অংশগ্রহণকারী কুশীলবদের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

উল্লেখ্য নাটকটির সকল চরিত্রে বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যগণ অভিনয় করেছেন। ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান বিপিএম(বার)পিপিএম(বার) এর তথ্য, সংকলন ও গবেষণায় এবং পুলিশ পরিদর্শক জাহিদুর রহমানের রচনায় ও নির্দেশনায় এবং বাংলাদেশ পুলিশ থিয়েটারের প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে নাটকটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *