তারাগঞ্জে এসডিএফ কর্মসূচির কর্মকর্তাদের নানা অনিয়মের অভিযোগ


প্রতিনিধি তারাগঞ্জ (রংপুর)ঃ
রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) কর্মসূচির শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে অ-নিদিষ্ট সময়ে ঋিণ দেয়া নেয়ার নামে অর্থ হাতিয়ে নেয়াসহ নানা অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। তিনি সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) কর্মসূচির অর্থ সময় মত বিতরণ না করায় ওই প্রতিষ্ঠানটি আর্থিক ভাবে খতির সম্মুক্ষিণ হচ্ছে।
সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) কর্মসূচির ঋণ বিতরণ করলেও আজ পর্যন্ত শতকরা ত্রিশ টাকাও উত্তোলণ করতে পারেনি ওই কর্মকর্তা। ফলে দায়িত্ব অবহেলার কারনে প্রতিষ্ঠানটি দিন দিন চরম খতি সাধনের সম্মক্ষিণ হচ্ছে। ওই প্রতিষ্ঠানটি দারিদ্র এলাকার জীবন মান উন্নয়নের লক্ষে সরকারের সাথে চুক্তি করে দারিদ্র এলাকায় কাজ করার প্রতিশ্রতি দিলেও তা সরেজমিনে বাস্তবায়ন হচ্ছে না। ফলে এলাকাবাসি প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি গোচরের দাবি করছে।
ওই কর্মকর্তা ঋণ দেয়ার নামে এ উপজেলার বিভিন্ন পেশা শ্রেণীর মানুষকে নানা ভাবে হয়রানি করে আসছে মর্মে অভিযোগ করছে ওই এলাকার ব্যবসায়ী জিয়ারুল ইসলাম বলেন, আমিসহ কয়েকজনকে ঋণ দেয়ার কথা বলে নানা ভাবে হয়রানি করে আসছে এসডিএফ কর্মকর্তা মতিউর রহমান।
উপজেলার ইকরচালী ইউনিয়নের কাচনা গ্রামের আজিজার রহমান বলেন, তারাগঞ্জ উপজেলার সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) অফিসের মতিউর রহমান আমার কাছে ৮ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েও ঋণ দেন নাই।
উপজেলার সয়ার ইউনিয়নের দামদুরপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত্যু আতিয়ার সরকারের ছেলে সেমাজ-সেবক বিশিষ্ট সাংবাদিক মমিনুর সরকার জানান, সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) তারাগঞ্জ শাখা ব্যবস্থাপকের কাছে তথ্য অধিকার আইনে তথ্য চেয়ে আবেদন করেছি। তিনি আমাকে তথ্য না দিয়ে নানা ভাবে হয়রানি করে আসছে।
এঘটনার সংক্রান্তে তারাগঞ্জ উপজেলার সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) অফিসের অভিযুক্ত মতিউর রহমান বলেন, আমার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই।
সোসাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ) কর্মসূচির জেলা ব্যবস্থাপক নাছরুল্লাহ এফ খান বলেন, তথ্য চাওয়া নাগরিক অধিকার, বিষয়টি জানা ছিল না, শাখা ব্যবস্থাপক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে অর্থ নয় ছয়য়ের ব্যপারটা আমার জানা নাই। বিষয়টি এই মাত্র শুনলাম কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা গ্রহন করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *