ডোমারে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বাড়িঘড় ভাংচুর, ২ বৃদ্ধ প্রতিবন্ধি, মহিলাসহ ৫জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। 

ডোমারে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বাড়িঘড় ভাংচুর, ২ বৃদ্ধ প্রতিবন্ধি, মহিলাসহ ৫জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। 

মোঃ সুমন ইসলাম প্রামানিক ডোমার (নীলফামারী ) প্রতিনিধি। 

নীলফামারীর ডোমারে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বাড়িঘড় ভাংচুর, ২ বৃদ্ধ প্রতিবন্ধি, মহিলাসহ ৫জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের হরিহারা গ্রামে। 

সরেজমিনে জানা যায়, উক্ত গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে দেলোয়ার হোসেনের সাথে প্রতিবেশী মৃত হাজী আফাজ উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ আলীর দীর্ঘদিন যাবত জমি সংক্রান্ত দ্বন্দ চলে আসছে। এরই জের ধরে রোববার (১৮সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত দের ঘটিকায় মোহাম্মদ আলী তার ছেলে দেলোয়রসহ তাদের দলবল নিয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে  মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে দেলোয়ার হোসেনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুরসহ বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ সময় মৃত কছিম উদ্দিনের ছেলে বৃদ্ধ বাক প্রতিবন্ধি আনিছুর (৬৫) তার ভাই আমিনুর (৬০) কে বেধরক মারপিট করে। অপরদিকে আনিছুরের স্ত্রী ওহেদা বেগম, আমিনুরের স্ত্রী নুর জাহান ও মৃত আলহাজ্ব আঃ মান্নানের স্ত্রী আলহাজ্ব সামসুন নাহার এগিয়ে গেলে প্রতিপক্ষরা লাঠি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে পিটিয়ে তাদের গুরুত্বর আহত করে। সংবাদ পেয়ে ডোমার থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী ঘটনা স্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। বর্তমানে প্রতিবন্ধি ২ভাই ও ৩জন মহিলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অগ্নিসংযোগের বিষয়ে ডোমার ফায়ার সার্ভিস এর টিম লিডার জয়নুল আবেদীন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনি। তবে আগুনে বড় ধরণের ক্ষতি সাধন হয়নি। ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মাহামুদ উন-নবী বলেন, পুলিশ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। থানায় অভিযোগ দিলে বিষয়টি তদন্ত করে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভুক্তভুগী মৃত আঃ মান্নানের ছেলে দেলোয়ার বলেন, তারা দীর্ঘদিন যাবত আমাদের সাথে শত্রুতা করে বাড়িঘড় দখলে নেয়ার পায়তারা করছে। আমার মা সামসুন নাহার একজন হাজী মানুষ তাকেও শত্রুরা বেধরক মারপিট করে আহত করেছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে, আমি প্রসাশনের কাছে ন্যায় বিচার দাবী করছি।            

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *