ডিমলায় বাইশ পুকুরে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ।

ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ

প্রতি বছরের ন্যায় এবারো আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট দফতর সমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারির উপস্থিতিতে উৎসব ও আনন্দঘন মুখর পরিবেশে বিনা মূল্যে বই বিতরণ করা হয়েছে। 

এবারের শিক্ষাবর্ষে ৪ কোটি ১৭ লাখ ২৬ হাজার ৮৫৬ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ২২ হাজার ১৩০ কপি পাঠ্যপুস্তক বিনামূল্যে বিতরণ করা হচ্ছে৷ 

তারমধ্যে নীলফামারী ডিমলা উপজেলায় ১লাখ ৫০ হাজার উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ হয়।

তারই ধারাবাহিকতায় ১লা জানুয়ারী ২০২৩ ইং রবিবার সকালে ডিমলা উপজেলা ৭নং খালিশা চাপানী বাইশ পুকুর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান সরকার।

আরো উপস্থিতিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ ও শিক্ষক শিক্ষিকাগন। 

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,৭ নং খালিশা চাপানী ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম শিমুল।  এসম প্রধান শিক্ষক আবু সাঈদ আলী  বলেন, তিস্তা নদীর নিভূত পল্লী ও চরাঞ্চলে এবং তিস্তার অববাহিকায় বাঁশপুকুর গ্রামে বাঁশপুকুর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি অবস্থিত। ২০০৮ ইং সালে তৎকালীন ডিমলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব আব্দুস সবুর মন্ডল সাহেবের মাধ্যমে শুরু হয়ে অদ্যবধি বিদ্যালয়টি শিক্ষকগন বিনা বেতনে সুনামের সঙ্গে চালিয়ে আসতেছে।একাডেমিক স্বীকৃতির মুখ দেখলেই ও এখন পর্যন্ত বেতনের মুখ দেখতে পাইনি। বেতন ভাতা পাব বলে আশায় বুক বেঁধে আছি। এ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় সাত থেকে আট কিলোমিটার দূরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এই এলাকার অধিকাংশ নিম্ন আয়ের মানুষ হওয়ায়।এখানকার মানুষজন ছোটতে মেয়ে কে বিবাহ দিত। শিক্ষার আলো জ্বালার ফলে এ প্রবণতা অনেকাংশে কমে গেছে। তোমরা যারা আছ সকল সকল প্রকার অপকর্ম ও অপরাধপ্রবণতা থেকে নিজেকে বিরত রাখবে। মন দিয়ে পড়াশুনা করে আশা করি আগামী দিনে সুশিক্ষা অর্জন করে দেশে জাতিটা কে গড়বে। মনে রাখবেন বইয়ের চেয়ে ভালো বন্ধু আর কেউ নেই। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *