ঠিক কোথায় গন্তব্য ক্ষুব্ধ মানুষ কবে ফিরবে বাজারের স্বাভাবিক অবস্থা।

এনামুল মবিন(সবুজ)

স্টাফ রিপোর্টার.

প্রতিদিনেই বাড়ছে নিত্য পণ্যের দাম যেনো নিয়ন্ত্রণের বাহিরে সবকিছুই। অন্য সময়ে দু-একটি পণ্যের দাম বাড়লেও এবার সবপন্যের দাম বাড়ানোর প্রতিযোগিতা চলছে সমানতালে। 

কৃষক পর্যায়ে দাম না বাড়লেও মধ্যস্থতাকারী বা ফাড়িয়াদের কাছে এসেই নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচাবাজারের দাম গুনতে হচ্ছে বেশি। ফলে উৎপাদনকারী কৃষক তেমন উপকৃত না হলেও চড়া দামে অধিক মূল্যে দোকান থেকে কিনতে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। “ঠিক কোথায় গন্তব্য ক্ষুব্ধ মানুষ নিজদের মধ্যে বলাবলি করলেও প্রতিকার অজানা। কবে আবার ফিরবে বাজারের স্বাভাবিক অবস্থা এসব আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু এখন”।

 দিনাজপুরে বিশেষ করে চালের বাজারে চরম অস্থিরতা বিরাজ করছে । দেশের অন্যতম পাইকারি চালের বাজার জেলার পুলহাটে। ২ দিনের ব্যাবধানে ৫০ কেজির বস্তা প্রতি দাম বেড়েছে ১৫০ থেকে ২০০ টাকা। খুচরা বাজারে বিভিন্ন চাল ভেদে ৪ থেকে ৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে। বাজারে ধানের সংকট দেখিয়ে এভাবেই প্রতিদিন বাড়ছে চালের দাম।

একই সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে অন্যান্য সব নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম, বাজার তদারকি প্রতিষ্ঠানের কোন রকম কার্যক্রম চোখে পড়েনি বলে জানান দিনাজপুর বাহাদুর বাজারে বাজার করতে আসা জনৈক শাহ জামাল। মেহনতি ও গরীবের আমিষের ভান্ডার খ্যাত বয়লার মুরগী গত সপ্তাহে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হলেও সেই বয়লার মুরগী এখন বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২২০ টাকা কেজি করে।

ভ্যান চালক আজহার আলী বলেন, আগের চেয়ে যাত্রী কম,আগে দিনশেষে সববাদ দিয়ে ৭০০-৮০০ টাকা নিয়ে যেতাম বাড়িতে খেতেও পারতাম সার্ধের মধ্যে কিন্তু এখন তা কমে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায় নেমেছে, এর মধ্যে আবার জিনিসপত্রের দাম অনেক বেশি,সব মিলিয়ে বলতে গেলে ঐ ধারদেনা করে চলছে সংসার।

গত সপ্তাহে ১১০ টাকার বয়লার মুরগীর ডিম গতকাল বিক্রি হয়েছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা ডজন।

কাঁচা মরিচের ঝাল পৌঁছে গেছে দিনাজপুর থেকে রাজধানী ঢাকা পর্যন্ত আলু,পটল,করলা,ঢেঁড়স, লেবু, বেগুন,শসা,বরবটিসহ সকল শাক সবজির দাম বেড়েছে ৫ থেকে ১০ টাকা অনেক টা বলা যায় সবজির দাম আকাশচুম্বী।

আয় ব্যায়ের মধ্যে পার্থক্য তৈরি হওয়ার কারণে সারাদেশের ন্যায় দিনাজপুরেও চরম বিপর্যয়ে রয়েছে মধ্যবিত্ত ও নিন্ম আয়ের মানুষজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *