ঠাকুরগাঁওয়ে খাদ্যগুদামে সিলগালা।

সোহেল রানা, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়র রুহিয়া খাদ্যগুদামে পুরাতন ও  নিম্নমানের চাল সংগ্রহের অভিযোগে  গুদাম সিলগালা করেছে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক। বিষয়টি তদন্তের জন্য  হরিপুর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক নিখিল চন্দ্র বর্মণকে প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন হয়েছে।  বুধবার (৮জুন) দুপুরে ওই তদন্ত কমিটি সরজমিনে খাদ্য গুদাম পরিদর্শন করে এবং সংগ্রহকৃত চাল খতিয়ে দেখে।
পরিদর্শনের সময় তদন্ত কমিটি জানায়, রুহিয়া খাদ্যগুদামে নিম্নমানের (পুরাতন) চাল সংগ্রহের অভিযোগে মঙ্গলবার গুদামের দুই নম্বর কক্ষটি সিলগালা করেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকসহ কর্মকর্তাগন। তারই প্রেক্ষিতে  আজ ওই গুদামে মজুদ করা চার শতাধিক বস্তা চাল খতিয়ে দেখছে তদন্ত কমিটি।


এ সময় গুদামে নিম্নমানের (পুরাতন) চাল সংরক্ষনের সত্যতা পায়। তবে কত বস্তা নিন্মমানের (পুরাতন) চাল গুদামে মজুদ করা হয়েছে তা তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিশ্চিত করা যাবে না বলে জানায় তদন্ত কমিটি। 
কমিটিতে অন্যান্যদের মধ্যে  রয়েছে সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক রিয়াজুল ইসলাম, টেকনিক্যাল ইন্সপেক্টর জুলফিকার আলী, খাদ্য পরিদর্শক খলিলুর রহমান।


অভিযোগ অস্বীকার করে রুহিয়া খাদ্য কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ জানান, এটি নিয়মিত কাজের অংশ। গুদামে চাল নিম্নমানের আছে কিনা তা সন্দেহে সিলগালা করা হয়েছিল। তদন্ত কমিটি তা পরিদর্শন করছেন। তবে চলতি মৌসুমে পুরাতন চাল কেন বিভাবে গুদামে মজুদ করা হয়েছে তা জানতে চাইলে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হয়নি।
পরিদর্শনের সময় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা  অভিযোগ করে বলেন, চলতি মৌসুমে গুদামে নতুন চাল সংগ্রহ করার কথা থাকলেও ফায়দা লুটতে নিম্নমানের পুরাতন চাল সংগ্রহ করেছেন গুদাম কর্মকর্তা। 
এরপূর্বে গত ফেব্রুয়ারী মাসে জেলার হরিপুর উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ এর বিরুদ্ধে অনিয়মেসর অভিযোগে তদন্ত অনুষ্ঠিত হয়।তদন্তকালে খামালের ভেতরে ৮৪ বস্তা চাল কম পায় তদন্তকারী দল।এছাড়াও বেশ কিছু খামালে নিম্ন মানের ও দুর্গন্ধযুক্ত চাল পায় তদন্তকারী দল । ২৮ বস্তা নিম্ন মানের চাল পাওয়ার কথা স্বীকার করে প্রতিবেদন দেয় তদন্ত কমিটি ।পরবর্তীতে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুল ইসলাম আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক রংপুর মহোদয়ের বরাবরে ২৬ ফেব্রুয়ারী তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণ করেন। ওই ঘটনায় পানিসমেন্ট বদলী হিসেবে খাদ্য কর্মকর্তা আব্দুর রশিদকে রুহিয়া গুদামে করা হয়। 
সে সময় দুর্নীতিবাজ   ওই কর্মকর্তাকে রুহিয়া খাদ্য গুদামে দেখতে চাই না দাবিতে  মানববন্ধন করে স্থানীয ব্যবসাযীরা। 
এ বিষয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার গুদাম পরিদর্শনে গিয়ে রুহিয়া খাদ্য গুদামে নিম্নমানের চাল সংগ্রহের অভিযোগে গুদামটি সিলগালা করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। আজ তারা তদন্ত করছেন। বিস্তারিত তদন্তের পর জানা যাবে। 
উল্লেখ্য যে, চলতি মৌসুমে ওই খাদ্য গুদামে ২ হাজার ১শ ৬৫ মেঃ টন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এখন পর্যন্ত ৮শ ৭৩ মেঃ টন চাল সংগ্রহ করে গুদাম কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *