জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষ্যে দশমাইল হাইওয়ে থানার ব্যাপক কর্মসূচি পালন।

এনামুল মবিন(সবুজ)

স্টাফ রিপোর্টার.

“আইন মেনে সড়কে চলি, নিরাপদে ঘড়েচলি”একটি দূর্ঘটনা সাড়াজীবনের কান্না এই স্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০২২ পালন উপলক্ষ্যে ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহন করেছে দশমাইল হাইওয়ে থানা পুলিশ। 

রবিবার (২২ অক্টোবর) সকালে বগুড়া রিজিয়নের দশমাইল হাইওয়ে থানা হল রুমে বগুড়া রিজিয়নের নিদের্শনা মোতাবেক দশমাইল হাইওয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রেজাউল হক এর নেতৃত্বে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক’ বাস্তবায়নে ব্যাপক কর্মসূচীর অংশ হিসাবে মহাসড়কের নিরাপত্তা নিশ্চিতে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস ২০২২ কে সামনে রেখে সারাদেশের ন্যায় বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি পালন। অবৈধ যানবাহন মুক্ত মহাসড়ক। অনাকাক্ষিত সড়ক দুর্ঘটনা যাত্রী ও যানবাহন চলাচল নির্বিঘ্নে রাখতে নিরাপদ সড়ক দিবস ২০২২ পালনে আলোচনা সভা, র‌্যালী এবং যানবাহন চালক ও যাত্রীসাধারনের মাঝে লিফলেট বিতরণ করা হয়।

দশমাইল হাইওয়ে থানা সূত্রে জানা যায়, জাতীয় নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণে দশ মাইল হাইওয়ে পুলিশ প্রতি মাসে অনন্ত ৩-৫ দিন মহা সড়কে থ্রী-হুইলার বন্ধে মাইকিং ও ট্রাফিক আইন মেনে চলতে উদ্ধৃদকরণ কর্মসূচি নেন। জনগণকে সড়ক পরিবহণ আইন মেনে চলতে অনুরোধ করেন। সম্প্রতি সময়ে মহাসড়ক আইন অমান্যকারীদের যানবাহন আইনে মামলা দেয় দশমাইল হাইওয়ে থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে দশমাইল হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ রেজাউল হক বলেন, আজ ২২শে অক্টোবর “আইন মেনে সড়কে চলি, নিরাপদে ঘড়েচলি”একটি দূর্ঘটনা সাড়াজীবনের কান্না এই স্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০২২ পালনে ব্যাপক কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আলোচনা সভা, র‌্যালী এবং আমাদের এই প্রচারণা।

তিনি আরো বলেন, জাতীয় নিরাপদ সড়কের প্রধান শর্ত হলো ট্রাফিক আইন মেনে চলা, অবৈধ যানবাহন মুক্ত মহাসড়ক ও মোটরসাইকেলে আরোহণের সময় চালক ও যাত্রী উভয়ের হেলমেট ব্যাবহার করা। নিরাপদ সড়ক বিনির্মাণের জন্য সরকারের পাশাপাশি সকল শ্রেণীর নাগরিকদের সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন। দশমাইল হাইওয়ে থানার উদ্যোগে নানা ভাবে সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছি। এখানে সম্মিলিত উদ্যোগের প্রয়োজন, এগিয়ে আসতে হবে সড়কে চলাচলকারী সবাইকে। ওভারস্পিড, ওভারটেকিং ও ওভারলোডসহ নানা কারনে প্রতিনিয়ত মহাসড়কে দুর্ঘটনার ঘটে। এ ছাড়া গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোনে কথা বলা ও ট্রাফিক আইন অমান্য করার কারণে দুর্ঘটনা ঘটে। উক্ত বিষয় রোধ করা গেলে দুর্ঘটনা কমে যাবে। পাশাপাশি দুর্ঘটনা রোধে মানুষের সচেতনতার বিকল্প নেই। মানুষ সচেতন হলেও দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে। এ ক্ষেত্রে আমরা ট্রাফিক আইন প্রয়োগের মাধ্যমে আরো কঠোর হবো।

এসময় তিনি মহাসড়কে চলাচলকৃত সকল যানবাহন চালকদেরকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস সম্পর্কে বলেন।গাড়ীর স্পিড কমিয়ে ৮০তে চালানোর অনুরোধ করেন। আপনার জীবন বাঁচালে আপনার পরিবারেরও জীবন বাঁচবে। ড্রাইভিং এবং গাড়ীর লাইসেন্সসহ সবধরনের ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানান।

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অ্যাড: মোঃ ওয়াজেদ সরকার,সাংবাদিক এনামুল মবিন(সবুজ)ও জয় চৌধুরী। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন,এসআই ননী গোপাল, দশমাইল হাইওয়ে থানার সার্জেন্ট বকুল রানী, এএসআই ভবানী কান্ত রায়,এএসআই মিঠুন চন্দ্র সেন,এএসআই বুলবুল ইসলামসহ দশমাইল হাইওয়ে থানার সকল ফোর্স ও স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *