চিরিরবন্দরে আত্রাই নদীতে নিখোঁজের ১৮ ঘন্টা পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার।

এনামুল মবিন(সবুজ),স্টাফ রিপোর্টারঃ দিনাজপুর চিরিরবন্দরে আত্রাই নদীতে গোসলে নেমে নিহাদ(৫) নামের এক শিশু নিখোঁজ হওয়ার ১৮ ঘন্টা পর রংপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল তাকে আড়াই কিলোমিটার দূরে মাদারগঞ্জ আত্রাই সেতুর নিচ থেকে উদ্ধার করেছে। গত ৮ অক্টোবর শনিবার দুপুর ১ টায় চিরিরবন্দর উপজেলার আউলিয়পুকুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর বারোবাড়ি এলাকার আত্রাই নদীর মতিয়ার ঘাটে নিখোঁজের ঘটনাটি ঘটে।

মৃত নিহাদ(৫) চিরিরবন্দর উপজেলার কৃষ্ণপুর বারোবাড়ী এলাকার রাজমিস্ত্রী আবুল কালাম এর নাতি এবং গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জ ডোমরগাছা এলাকার মিজানুর রহমান ও পারুল আকতার দম্পতির এক মাত্র ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, শিশুটির পিতা মিজানুর রহমান ও তার মা পারুল আকতার দুজনে ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করেন, কাজের সুবিধার্থে নিহাদকে তার নানা নানীর হেফাজতে রেখে যায়। দুপুরে নিহাদ তার বন্ধুদের সঙ্গে খেলতেছিলো এরপর সব বন্ধুরা মিলে আত্রাই নদীতে গোসল করতে যায়। গোসল করার সময় নিহাদ তলিয়ে যায়। পরে তার সঙ্গে থাকা বন্ধু ও স্থানীয় বড় ভাইয়েরা অনেক খোঁজাখুজি করে। খোঁজ না মেলায় চিরিরবন্দর ফায়ার সার্ভিসকে ফোন দিলে ফায়ার সার্ভিস রংপুর থেকে ডুবরি দল এনে রাত ৮ টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে খোঁজ না পেয়ে উদ্ধার অভিযান স্থগিত করেন এবং গতকাল ৯ অক্টোবর সকাল ৮ টা হতে অভিযান পরিচালনা করেন এবং সকাল আনুমানিক ১০ টায় মাদারগঞ্জ আত্রাই সেতুর নিচে থেকে মরদেহ উদ্ধার করেন। 

চিরিরবন্দর থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ বজলুর রশিদ সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, চিরিরবন্দর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মোঃ মাহবুবুর রহমানের সঠিক দিকনির্দেশনা ও ডুবুরি দলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রায় ১৮ ঘন্টা খোঁজার পর সকাল ১০টায় নিখোঁজ শিশু নিহাদকে নিখোঁজ স্থান থেকে প্রায় আড়াই কিলোমিটার দূরে মাদারগঞ্জ আত্রাই সেতুর নিচ থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *