আমরা ত্রাণ চাইনা স্থায়ী বাঁধ চাই, চেয়ারম্যানের গড়ি মেসির কারণে আমাদের এই অবস্থা।

ডিমলা প্রতিনিধিঃ আকর্ষিক বন্যায় উজনের ঢল নেমেছে খরস্রোতা তিস্তা নদী লাফিয়ে লাফিয়ে রুপ পাল্টালে ফুলে ফেঁপে ওঠে। যার ফলশ্রুতিতে ৯ নং টেপাখড়িবাড়ী  ইউনিয়ন স্বপ্ন বাঁধ ভেঙ্গে গেলে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ১৫০ পরিবার।বর্তমানে তারা রাস্তার ধারে অস্থায়ী  ছাউনি দিয়ে মানবেতর বাস করে আছেন। 


তার পরেও তাদের একটাই দাবি আমরা ত্রাণ চাই না, স্থায়ী বাঁধ চাই। এলাকাবাসির ভাষ্য মতে চেয়ারম্যান যদি বাঁধটি বাধতেন তবে আজকের এ অবস্থা হত না।


এতে কারও ধান বীজ, পুকুরে মাছ, আবাদি জমি, গৃহ পালিত পশু সহ অপূরনীয় ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে বলে জানা যায়। এ দিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কিছু শুকনা খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে বলে জানাগেছে।অপর দিকে ১০ নং পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়ন ১৫০০ শত পরিবার এবং ৪ খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়ন ৩৫০ পরিবার ৭ নং ছোট খাতা খালিশা চাপানি ইউনিয়ন প্রায় ১২শত পরিবার এবং ৮ নং ঝুনাগাছ চাপানী ছাতুনামা এবং ভেন্ডাবাড়ী এলাকায় প্রায় ৬০০শত পরিবার পানি বন্দি হয়ে পরেছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *